নারী নির্যাতনের মামলায় হিরো আলম গ্রেপ্তার

আলোচিত মডেল-অভিনেতা আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম নারী নির্যাতনের মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন । বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় বগুড়া সদর থানার পুলিশ হিরো আলমকে থানায় ডেকে নেয়। পরে রাত ১১টার দিকে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুর রহিম গ্রেপ্তারের বিষয়টি গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, হিরো আলম তার স্ত্রী সাবিহা আক্তার সুমিকে (৩০) নির্যাতনের ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। সাবিহার বাবা সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে আজ থানায় মামলা করেছেন।
এর আগে স্ত্রী সুমিকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠানোর অভিযোগ ওঠে হিরো আলমের বিরুদ্ধে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে বগুড়ায় হিরো আলমের নিজের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটান তিনি। হিরো আলমের শ্বশুর সাইফুল ইসলাম অভিযোগ করেন, মঙ্গলবার রাতে হিরো আলম তার মেয়েকে মারধর করেন। এ খবর পেয়ে তিনি মেয়ের বাড়ি যান। পরে সেখান থেকে সুমিকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ক্যাজুয়ালটি বিভাগে ভর্তি করান তিনি।
হাসপাতালে সুমির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গত সোমবার রাতে হিরো আলম বগুড়া শহরতলীর এরুলিয়া গ্রামে তার বাড়িতে আসেন। রাতে বিছানায় শুয়ে একটানা তিন ঘণ্টা ঢাকার এক নারীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন তিনি। এ নিয়ে প্রতিবাদ জানালে তার সঙ্গে বিবাদে জড়ান হিরো আলম। পরদিনও একই ঘটনা ঘটনায় স্বামীর সঙ্গে তর্কে জড়ান সুমি। একপর্যায়ে তাকে মারধর করতে শুরু করেন হিরো আলম। সুমির অভিযোগ, তার স্বামী ঢাকায় আরেকটি বিয়ে করেছেন। এ কারণেই বগুড়া আসলেও সংসারের কোনো খরচ তিনি বহন করেন না। এমনকি তার সন্তানেরও কোনো খোঁজ রাখেন না।

Leave a Reply

Top