তিউনিসিয়ায় শরণার্থীবাহী নৌকাডুবি, নিহত ৪৮

তিউনিসিয়ার উপকূলীয় ইসফ্যাক্স উপসাগরে ইউরোপে অভিবাসন প্রত্যাশীদের বহনকারী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ৪৮ জন মারা গেছেন। গত রোববার রাতে তিউনিসিয়ার পর্যটন দ্বীপ কেরকেনার কাছে নৌকাটি ডুবে যায়।

এক বিবৃতিতে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ দুর্ঘটনার খবর জানায়। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। তিউনিসিয়া কোস্টগার্ড ঘটনাস্থল থেকে আরও ৬৭ জনকে উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অভিবাসন প্রত্যাশীদের নৌকাডুবির ঘটনাগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে শোচনীয় দুর্ঘটনা। মৃতরা তিউনিসিয়া ও অন্যান্য দেশের নাগরিক বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত আর কিছু বলা হয়নি।

নিরাপত্তা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নৌকাটিতে প্রায় ১৮০ জন অভিবাসন প্রত্যাশী ছিলেন, তাদের মধ্যে ৮০ জন আফ্রিকার অন্যান্য দেশের নাগরিক। এদিকে একদফা রোববার রাতে উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়। পরে সোমবার সকালে আবার তা শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

বেঁচে যাওয়া এক অভিবাসন প্রত্যাশী জানিয়েছেন, নৌকাটি ডুবতে শুরু করার পর কোস্টগার্ডের হাতে গ্রেপ্তার এড়াতে ক্যাপ্টেন নৌকা ফেলে পালিয়ে যান।

জানা গেছে, বেঁচে যাওয়া স্বজনদের খোঁজে কিংবা মৃত স্বজনদের শনাক্ত করতে অভিবাসন প্রত্যাশীদের অনেক আত্মীয় এই শহরটিতে জড়ো হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, লিবিয়ার কোস্টগার্ড স্থানীয় সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর সহায়তায় উপকূলের ওপর নিয়ন্ত্রণ জোরদার করার পর থেকে ইউরোপে লোক পাঠাতে মানব পাচারকারীরা তিউনিসিয়াকে ব্যবহার করতে শুরু করেছে।

Leave a Reply

Top