ভারি বর্ষণে পানিতে ভাসছে চার শতাধিক রোহিঙ্গা পরিবার!

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় ভারি বর্ষণের কারণে গত তিন দিন ধরে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। পানির নিচে তলিয়ে গেছে বালুখালী ক্যাম্প এলাকার সমতলের রোহিঙ্গা ঝুপড়িসহ চার শতাধিক পরিবার। পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত হয়েছে ৪ শতাধিক ঝুপড়ি ঘর। সোমবার পাহাড় ধসে এক শিশুর মৃত্যুও হয়েছে, আহত হয়েছে তিন শতাধিক। ক্যাম্প এলাকার আভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় ৪৮ ঘণ্টা যোগাযোগ বন্ধ ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, অনিয়ন্ত্রিত পাহাড় কাটার কারণে পরিস্থিতি বিরূপ আকার ধারণ করেছে। টেকনাফের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জি ব্লক, জি-সেভেন ব্লক, বালুখালী ক্যাম্প, থাইংখালির ১৩ নং ব্লকসহ বিস্তির্ণ এলাকায় ভূমিধস হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের কারণে গত কয়েকদিন ধরে ঝোড়ো হাওয়া আর টানা বৃষ্টিপাত হচ্ছে কক্সবাজারে। ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গারা জানান, যারা পাহাড়ের উপরে ঘর বেঁধেছিলেন তারা জখম হয়েছেন, যারা পাহাড়ের নিচে ঘর বানিয়েছেন তারা এখন বন্যার কবলে পড়েছেন। ৭০ কিলোমিটার গতির বাতাসের সঙ্গে ভারী বর্ষণের কারণে পাহাড় ধসের কবলে পড়েছেন তিন সহস্রাধিক মানুষ। গত শনিবার থেকে কক্সবাজার অঞ্চলে ৪শ’ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। টানা এ বর্ষণের কবলেই দিনযাপন করছেন রোহিঙ্গা শিবিরগুলোর ১০ লক্ষাধিক আশ্রিত রোহিঙ্গা।

Leave a Reply

Top