ফুলবাড়িয়া কলেজের ১২ শিক্ষকসহ ৮২ জনের নামে চার্জশীট দাখিল

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ জাতীয়করনের দাবিতে আন্দোলন চলাকালে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় দায়েকৃত পৃথক ৪টি মামলায় কলেজের ১২ শিক্ষকসহ ৮২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে পুলিশ।

২০১৬ইং সালের ২৪ নভেম্বর কলেজ জাতীয়করনের দাবিতে আন্দোলনে নামেন ছাত্র-শিক্ষকসহ এলাকাবাসী। উপজেলা সদরের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ চত্বরে যানবাহন ভাংচুরসহ পুলিশের সাথে আন্দোলনকারিদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে। হামলা-ভাঙচুরের ঘটনার পরের দিন ২৫ নভেম্বর সকালে কুশমাইল দেওনাইপাড় এলাকার বাসীন্দা শামীম আহমেদ বাদী হয়ে ১২ শিক্ষকসহ ১৯ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

১৩ নভেম্বর পৌরসদরের উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার অফিসে হামলা ভাংচুরের ঘটনায় সাব-রেজিস্ট্র্রি অফিস সহকারী হামিদা খাতুন বাদী হয়েএকটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার কলেজের ১২ শিক্ষকসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করা হয়েছে।

২৪ নভেম্বর বিকেল ৫টার দিকে পৌর সদরের আখালিয়া হেলথ সেন্টারে সন্ত্রাসী হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় ১২ শিক্ষকসহ ১৯ জনকে আসামি করে কুশমাইল গ্রামের হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার চার্জশিট দাখিল করেছেন মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এস আই আরিফুল ইসলাম।

২৪ নভেম্বর পৌর সদরের আলম-এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেড টার্মিনাল কাউন্টারে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় ২৫ নভেম্বর সকালে আলম এশিয়ার অফিস সহকারী আকরাম হোসেন বাদী হয়ে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় ১২ শিক্ষকসহ ১৯ জনকে আসামি করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম।

ফুলবাড়িয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের চার্জশীটভুক্ত ১২ শিক্ষক হলেন – মোঃ হেলাল উদ্দিন, মোঃ ইউনুছ আলী, মোঃ আব্দুল মতিন, নুরুল হুদা, খাইরুল ইসলাম, মোঃ জিল্লুর রহমান, শহীদুল্লাহ, মোঃ রুহুল আমিন, এসএম আবুল হাশেম, মোঃ ইমাম হোসেন, মোঃ রহুল আমিন ও মোঃ ফজলুল হকসহ কলেজ শাখা ছাত্রলীগ আহ্বায়ক আবুল হাসনাত জনি, সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি ইসমাইল হোসেন মারুফ। উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আজহারুল ইসলাম রিপন ও কলেজ ছাত্রদল নেতা আল আমিন সাদাত।

এসব মামলার ব্যাপারে শিক্ষক নেতা এস এম আবুল হাশেম বলেন, অসৎ উদ্দেশ্যে আমাদের ঘায়েল করার জন্য মিথ্যা মামলা সাজিয়ে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ফুলবাড়ীয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ কবিরুল ইসলাম জানান, আমি বদলি হয়ে আসার আগের ঘটনা। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তারা বিধি মোতাবেক তদন্ত করে চার্জশীট দাখিল করেছেন।

ফুলবাড়ীয়া কলেজ জাতীয়করণে টানা ৪৩ দিন আন্দোলন শেষে ২৭ নভেম্বর ফুলবাড়িয়া কলেজ জাতীয়করণ আন্দোলনে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় পুলিশের আঘাতে কলেজ শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ ও পথচারী সফর আলী নিহত হন। পুলিশের গুলি ও লাঠিপেটায় সে সময় আহত হন আরও অর্ধশত মানুষ।

Leave a Reply

Top