কোটা আন্দোলনের নেতা সোহেলকে পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের (ভিসি) বাড়িতে ভাঙচুর ও নাশকতা মামলায় কারাগারে থাকা কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক সোহেল ইসলামকে কারাগার থেকে পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। বুধবার ঢাকার মহানগর হাকিম গোলাম নবী এ আদেশ দেন।

ঢাকার অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার আনিসুর রহমান এনটিভি অনলাইনকে জানান, আজ ঢাকার মহানগর হাকিম গোলাম নবীর আদালতে কোটা আন্দোলনের নেতা সোহেল কারাগার থেকে পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতির জন্য আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য অনুমতি প্রদান করেন। সোহেল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্র। সোহেলের আইনজীবী জাহিদুল ইসলাম জাহিদও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ১১ জুলাই ভিসির বাড়িতে ভাঙচুর ও নাশকতার মামলায় সোহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর পরে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। মামলার নথি থেকে জানা যায়, গত ৮ এপ্রিল রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় পুলিশকে মারধর, কর্তব্যকাজে বাধা, পুলিশের ওয়াকিটকি ছিনতাই ও উপাচার্যের বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় পুলিশ বাদী হয়ে চারটি মামলা করে। এসব মামলার মধ্যে উপাচার্যের বাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশের কর্তব্যকাজে বাধার ঘটনায় দায়ের করা দুই মামলায় চারজনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের রিমান্ড শেষে এখন কারাগারে আটক রাখা হয়েছে। আসামিরা হলেন রাকিবুল হাসান, আলী হোসেন শেখ, মাসুদ আলম ও আবু সাঈদ ফজলে রাব্বি। এখন মশিউর রহমানকে এ মামলায় কারাগারে পাঠানো হলো। তাঁকে আজ গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

এ ছাড়া তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের মামলায় কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খানকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। পরবর্তী সময়ে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়। ওই মামলা করেছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক আল নাহিয়ান খান জয়।

Leave a Reply

Top