বাম গণতান্ত্রিক জোটের আত্মপ্রকাশ

লাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টিসহ আটটি দলের সমন্বয়ে আত্মপ্রকাশ করেছে ‘বাম গণতান্ত্রিক জোট’। বুধবার রাজধানীর পল্টনে মুক্তিভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওই নতুন এই জোট গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়।

আটদলের ওই জোটে আছে, সিপিবি, বাসদ, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, বাসদ (মার্কসবাদী), গণসংহতি আন্দোলন, বাংলাদেশের ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন।

জোট নেতারা বলেন, ক্ষমতার ভাগাভাগি বা নির্বাচনী ঐক্য নয় বরং রাজপথে দীর্ঘদিনের আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আটটি বামদল এক হতে পেরেছে। একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আয়োজনের সঠিক ক্ষেত্র প্রস্তুত করাই এই জোটের প্রথম লক্ষ্য বলে জানান নেতারা। সেজন্য তাঁরা নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার আগে সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে, নিরপেক্ষ সরকার গঠনের দাবি জানান।

জোটের সমন্বয়ক সাইফুল হক বলেন,‘খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকার ও সরকারি দল ও নানা সংস্থার ব্যবস্থাপনা ও কর্তৃত্বের নিয়ন্ত্রিত নির্বাচনের এক নজিরবিহীন মডেল চালু করা হয়েছে। দেশবাসীর পাশাপাশি আমাদের আশঙ্কা রাজশাহী সিলেট ও বরিশালের ৩০ জুলাইয়ের সিটি করপোরেশন নির্বাচনসহ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই নিয়ন্ত্রিত নির্বাচনের মডেলিং অনুষ্ঠিত হবে।’

সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন,‘এই কথা প্রমাণিত হয়ে গেছে, যে বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে পারে না। সুতরাং পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে। নির্বাচনকালে যাতে প্রকৃত নিরপেক্ষ এবং সরকার এবং নির্বাচন কমিশন উভয়ের ক্ষেত্রে যাতে নিরপেক্ষ কর্তৃত্ব এই দেশের উপরে থাকে। প্রয়োজনে সংবিধান সংশোধন করে হলেও সেই ব্যবস্থা অবিলম্বে চালু করতে হবে।’

Leave a Reply

Top